টাইলস (Tiles)

0
1265

ঘরের সৌন্দর্যে টাইলস, তাই টাইলস নিয়ে কিছু কথা না বললেই নয়—-

tiles

ইদানীং ঘরের নান্দনিকতা বৃদ্ধিতে টাইলসের জুড়ি মেলা ভার। কী বারান্দা, কী মেঝে কিংবা বাথরুম সবটাই মনের মাধুরী দিয়ে শিল্পীর মতো সাজিয়ে নিতে পারেন। আপনি প্রকৃতিপ্রেমী হলে থাকছে মাছ, ফুল
অঙ্কিত নানা রঙবেরঙের টাইলস অথবা চাইলে দেয়ালটাকে ক্যালিগ্রাফিতেও ভরে তুলতে পারেন। তবে দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে যেমনি পরিবর্তন হচ্ছে মানুষের চাহিদা ও রুচি তেমনি পরিবর্তন হচ্ছে টাইলসের ডিজাইন। আর এমন মনকারা ডিজাইনের টাইলস বাংলাদেশেই তৈরি হয়। দেশি টাইলস কোম্পানিগুলো হলো- র‌্যাক টাইলস, মির টাইলস, গ্রেট ওয়াল, চায়না-বাংলা, ঢাকা-সাংহাই ইত্যাদি।

এছাড়াও বিদেশি টাইলস তো থাকছেই। বিদেশি টাইলসগুলোর বেশিরভাগই আসে চীন থেকে। এছাড়া স্পেন, ইতালি ও মালয়েশিয়া থেকেও কিছু টাইলস আসে।  বিদেশের টাইলসগুলো প্যাকেজ হিসেবে বিক্রি করা হয়। এই প্যাকেজের মধ্যে থাকে দেয়ালের জন্য প্লেইন টাইলস, ডেকোরেটিভ টাইলস ও বর্ডার টাইলস এবং মেঝের টাইলস, দেয়ালের প্রায় মাঝ বরাবর বর্ডার করার জন্য ব্যবহার করা বিভিন্ন ডিজাইনের বর্ডার টাইলস। এর উচ্চতা সাধারণত দুই ইঞ্চি থেকে চার ইঞ্চি।

আর দেয়ালজুড়ে প্লেইন টাইলসের মাঝে-মধ্যে নির্দিষ্ট দূরত্ব পর পর একটি ডেকোরেটিভ টাইলস বা নকশা করা টাইলস ব্যবহার করা হয়। এত ডিজাইনের ভিড়ে আপনাকে পছন্দ করতে হবে নিজের স্বপ্নের ঘরটাকে কীভাবে সাজাবেন। তবে টাইলস কিনে দেয়ালে যাচ্ছেতাই সেঁটে দিলেই হলো না, এতে আপনার কাজের কাজ কিছুই হবে না বরং টাকা ও দেয়াল দুটোই গচ্ছা যাবে। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক কোথায় কোন ধরনের টাইলস ব্যবহার করবেন-

*ঘরের দেয়ালে সাধারণত উজ্জ্বল রঙ বিশেষ করে হলুদ রঙের বিভিন্ন শেড যেমন- কমলা, হলুদ, সোনালি রঙ ভালো মানায়। এক্ষেত্রে এবার ঘরের মেঝের রঙ হবে হলুদের সবচেয়ে হালকা শেডটি অর্থাৎ ঘিয়ে রঙ।

* বসার ঘরে কার্পেটের বদলে টাইলসের সঙ্গে গ্রানাইট দিয়ে ডিজাইন করতে পারেন। ঘরের আকার অনুযায়ী
মেঝের মাঝখানে বর্গাকার আয়তকার করে জিওম্যাট্রিক্যাল ফর্মে গ্রানাইটের নকশা করুন। এ ধরনের ডিজাইন মডার্ন ঘরের গৃহসজ্জায় বেশ ভালো মানায়।

*ঘরের ব্যবহার অনুযায়ী টাইলস ভিন্ন হতে পারে। বসার ঘর, খাবার ঘর ও শোয়ার ঘরে সাধারণত মিরর পলিশ টাইলস ব্যবহার হয়। রান্নাঘর আর বাথরুমের জন্য হোমোজিনিয়াস (ম্যাট) টাইলস।

* যারা কাঠের টেঙ্ার পছন্দ করেন, তাদের জন্য রয়েছে উডেন টাইলস। গ্লোসি এবং ম্যাট দুই ধরনের উডেন টাইলসই পাওয়া যায়। একটু গর্জিয়াস লুক চাইলে আছে ডেকোরেটিভ টাইসল।

* বসার ঘর কিংবা খাবার ঘরের যে কোনো একটা দেয়ালে রাস্টিক টাইলস বা ব্রিক টাইলস দিয়ে ডিজাইন করতে পারেন। খাবার ঘরের বেসিনের দেয়ালে রাস্টিক বা ব্রিক টাইলস বেশ ভালো মানায়।

* শোয়ার ঘরের দেয়ালে ইচ্ছামতো রঙ ব্যবহারের সুযোগ থাকে। ঘর বড় হলে গাঢ় যে কোনো রঙ ব্যবহার করা যায়। আর ঘর ছোট হলে একটা দেয়ালে গাঢ় রঙ আর বাকি দেয়ালগুলোতে হালকা ও উজ্জ্বল রঙ ব্যবহার করুন। এ ঘরে টাইলস হবে দেয়ালের গাঢ় রঙের সবচেয়ে হালকা শেডটি। অর্থাৎ, দেয়াল নীল হলে মেঝে উজ্জ্বল আকাশি আর দেয়াল সবুজ হলে মেঝে হবে উজ্জ্বল কলাপাতা রঙ।

* ৪”/৪”, ৬”/৬”, ৮”/৮”, ৮”/১০”, ১০”/১০” , সাইজের টাইলস কিচেন/বাথরুমের দেওয়ালে ব্যবহার করা হয়।

* ১২”/১২”, ১২”/১৬”, ১২”/১৮”, ১৮”/১৮”, ৩০”/৩০” এবং ২´/২´ সাইজের টাইলস ফ্লোর/মেঝেতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

টাইলসের পরিষ্কার :

কারও কারও অভিযোগ টাইলস পরিষ্কার করা খুব ঝামেলার কাজ। তাই অনেকেই আলসেমি করে পরিষ্কার করতে চান না, কিন্তু এটা ঠিক নয়, প্রতিদিন অন্তত পক্ষে একবার হলেও ঘরটা পরিষ্কার করতে হবে। টাইলস সহজেই পরিষ্কার করার কয়েকটি টিপস-

tiles
tiles

* টাইলসের ওপর কোনো মতেই যেন পানি জমে না থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

* রান্নাঘরের টাইলসে ময়লা পড়ার আশঙ্কা থাকে সবচেয়ে বেশি। তাই পরিষ্কারক তরল দিয়ে সব সময় কিংবা রান্নার পর পরই পরিষ্কার করে রাখতে হবে।

* প্রতিদিন ঘর মোছার মতো শুকনো পরিষ্কার কাপড় পানিতে ভিজিয়ে ঘরের প্রতিটি কক্ষ পরিষ্কার করে রাখতে হবে। তবে লক্ষ্য রাখতে হবে, পানি দিয়ে পরিষ্কার করার সময় মেঝে পিচ্ছিল হয়ে না যায়।

* তেল-চর্বিজাতীয় দাগ পড়ে টাইলস যেন নষ্ট না হয়, সেজন্য যেসব স্থানে দাগ পড়বে সঙ্গে সঙ্গে তা সাবানের
পানি দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।

* সাধারণত টাইলসের জোড়া লাগানো স্থানের কোনায় কোনায় ময়লা জমে কালচে দাগ পড়ে, তাই সপ্তাহে অন্তত এক দিন ডিটারজেন্ট পাউডার গোলা পানি কিংবা ফোমে সাবান বা লিকুইড ক্লিনার ব্যবহার
করা যেতে পারে।

* রোগ-জীবাণুমুক্ত রাখতে সপ্তাহে অন্তত একবার স্যাভলন পানির সঙ্গে মিশিয়ে ঘর পরিষ্কার করতে হবে।

* দেয়ালের সিরামিক-টাইলস পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন সুতির শুকনো কাপড়।

প্রাপ্তিস্থান ও দরদাম : ছড়িয়ে-ছিটিয়ে বিভিন্ন জায়গায় টাইলস বিক্রি হলেও যাত্রাবাড়ী, বাংলামোটর, মহাখালী, উত্তরা ও বাড্ডাতে টাইলসের বিশাল বাজার রয়েছে। এখান থেকেই স্বাচ্ছন্দ্যে টাইলস সংগ্রহ করা যায়। এই মার্কেটগুলোতে দেশি-বিদেশি সব টাইলসই পাবেন। দেশীয় কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- মীর সিরামিকস, আরএকে সিরামিক, সান ফ্লাওয়ার সিরামিক, মধুমতি সিরামিক ও ফুওয়াং সিরামিক। সাধারণ বিদেশি টাইলস প্রত্যেত বর্গফুটের দাম ৭০ থেকে ১৮০ টাকা এবং দেশি টাইলসের দাম ২৫ থেকে ১২০ টাকা। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন, প্রাকৃতিক দৃশ্য, আরবি লেখা সহকারে প্রত্যেক বর্গফুট বিদেশি টাইলস ২৫০-৫৫০ টাকা এবং
দেশি টাইলস ১৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হয়।

ধন্যবাদ এই পোস্টটি পড়ার জন্য। এই পোস্ট টি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

3 × four =